চোখের নিচের কালো ও ফোলাভাব দূর করবেন যেভাবে, জেনে নিন।

চোখের ফোলা ভাব একটি পরিচিত সমস্যা। সকালে ঘুম(Sleep) থেকে ওঠার পর অনেকেরই চোখ ফোলা দেখায়। এ সমস্যায় কী করণীয় তা নিয়েই এবারের আয়োজন। চলুন জেনে নেওয়া যাক চোখের ফোলা ভাব কমানোর উপায় সম্পর্কে।চোখের ফোলা ভাব

চোখের ফোলা ভাব কমাবেন যেভাবে
পানি: চোখের নিচের ফোলাভাব দূর করার সবচেয়ে সহজ উপায় হলো পানি(Water) পান। শরীর পানিশূন্য হয়ে পড়লে চোখের নিচ ফুলে যায়। দিনে কমপক্ষে ৮ থেকে ১০ গ্লাস পানি পান করুন।

টি ব্যাগ: গ্রিন টি বা ব্ল্যাক টি উভয়েই চোখের নিচের ফোলাভাব দূর করতে বেশ কার্যকর। এটি চোখের লালচে ভাব এবং ইনফ্লামেশন(Inflammation) দূর করে দেয়। ব্যবহৃত টি ব্যাগগুলো ফ্রিজে রাখুন। খুব ঠান্ডা হয়ে গেলে টি ব্যাগগুলো চোখের উপরে দিয়ে রাখুন ১০-১৫ মিনিট।

ডিমের সাদা অংশ: দুটি ডিমের সাদা অংশ ভালো করে ফেটিয়ে নিন। সাথে কয়েক ফোঁটা গোলাপ জল(Rose water) মিশিয়ে নিন। এবার একটি ব্রাশ ডিমের সাদা অংশে ডুবিয়ে চোখের নিচে লাগান। ১৫ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ভাল করে ধুয়ে ফেলুন।

চামচ: চামচ চোখের নিচের ফোলাভাব দূর করতে সাহায্য করে। এটি চোখের চারপাশের অংশের নমনীয়তা ধরে রাখে এবং রক্ত(Blood) চলাচল বৃদ্ধি করে। ৫-৬টি চামচ ফ্রিজে রাখুন ১০-১৫ মিনিট। ১০-১৫ মিনিট পর চামচের পিছনের অংশ চোখের উপর রাখুন। চামচ গরম না হওয়া পর্যন্ত এটি চোখের উপর ধরে রাখুন।

শসা: চোখের নিচের কালি দূর করার জন্য শসার রস(Cucumber juice) অনেক উপকারী। ঠিক তেমনি চোখের ফোলাভাব দূর করতেও এটি কার্যকর। শসার এনজাইম ত্বকের ইনফ্লেমেশন কমিয়ে ত্বকের কালো দাগ ও ফোলা দূর করে থাকে। কয়েকটি শসার টুকরো ফ্রিজে ১০ মিনিটের জন্য রাখুন। এরপর টুকরোগুলো চোখের নিচে রাখুন। ১০ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

আলু: শসার মতো আলুও চোখের নিচের কালি এবং ফোলাভাব দূর করবে। মাঝারি আকৃতির আলু(Potato) ধুয়ে পরিষ্কার করে কুচি করুন। আলুর কুচি একটি কাপড়ের উপর রাখুন। কাপড়টি বেঁধে পুটলি তৈরি করুন। এই পুটলিটি চোখের উপর দিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। এটি কয়েকবার করুন। সরাসরি আলুর কুচিও চোখের উপর রাখতে পারেন।

লবণ পানি: চার কাপ পানিতে আধা চা চামচ লবণ(Salt) মিশিয়ে নিন। লক্ষ্য রাখবেন পানি যেন খুব বেশি গরম না হয়। কুসুম গরম পানির এই মিশ্রণে একটি তুলোর বল ভিজিয়ে নিন। এটি চোখের পাতার উপর কয়েক মিনিট রাখুন। এটি ১৫ থেকে ২০ মিনিট ধরে কয়েকবার করুন।

সুস্থ থাকুন, নিজেকে এবং পরিবারকে ভালোবাসুন। আমাদের লেখা আপনার কেমন লাগছে ও আপনার যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে জানান। আপনার বন্ধুদের কাছে পোস্টটি পৌঁছে দিতে দয়া করে শেয়ার করুন। পুরো পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*