উকুনের বংশ, নির্বংশ করে দাও!

ছেলে হোক বা মেয়ে, বাচ্চা স্কুলে যেতে শুরু করলে উকুন হবে না, এমন আশা না করাই ভালো। আর পাঁচটা বাচ্চার সাথে মেলামেশা, পাশাপাশি বসা, একসাথে খেলায় এক মাথা থেকে আরেক মাথায় উকুন আসবেই। মা হিসেবে নজর রাখতে হবে আপনাকে! বাচ্চা খুব মাথা চুলকালে, বা খিটখিট করলে কিংবা সরাসরি ওর জামাতেই এক-দুটো উকুন উঁকিঝুঁকি দিলে তৎপর হোন আজই। প্রথমেই দাওয়াই খানায় না ছুটে সাহায্য নিন ঘরোয়া কিছু টোটকার। উকুন-সমস্যার শুরু শুরুতে এগুলো দারুণ কাজে দেয়, সেই সাথে চুলেরও যত্ন হয় খানিক। ধৈর্য ধরে দিন ১৫ প্রয়োগ করে দেখুন, কাজ হলো কি না তারপর জানান আমাদের।

উকুনের বংশ, নির্বংশ করে দাও!
#1. মেয়োনিজ (Mayonnaise)
উকুন তাড়ানোর অন্যতম দাওয়াই হল মেয়োনিজ! বাচ্চার মাথার তালুতে মালিশ করে ৬ ঘণ্টা রেখে দিন। ৬ ঘণ্টা পর শ্যাম্পু দিয়ে মাথা ধুইয়ে দিন। মেয়োনিজের ঝাঁঝালো গন্ধে সব উকুন মরে যাবে।

উকুনের বংশ, নির্বংশ করে দাও!
#2. বাদাম তেল (Olive Oil or Almond Oil)
উকুনের উৎপাত শুরু হলে সপ্তাহে ২-৩বার বাদাম তেল বা অলিভ অয়েল মালিশ করুন বাচ্চার মাথায়। এরপর ধীরে ধীরে ওর চুল আঁচড়ে দিন, শ্যাম্পু দিয়ে ধুইয়ে দিন। এভাবেই সোনার মাথা হবে উকুনমুক্ত!

উকুনের বংশ, নির্বংশ করে দাও!
#3. আদার পেস্ট (Ginger Paste)
আদার পেস্টের সাথে লেবুর রস মিশিয়েও বাচ্চার মাথায় মালিশ করতে পারেন। এক্ষেত্রে তোয়ালে দিয়ে বাচ্চার চুল মুড়ে রাখুন বেশ কিছুটা সময়। উকুনের দল ধীরে ধীরে বিদায় নিলে শ্যাম্পু করিয়ে দিন।

উকুনের বংশ, নির্বংশ করে দাও!
#4. রসুনের পেস্ট (Garlic Paste)
একই প্রক্রিয়ায় কাজে আসতে পারে রসুন পেস্টও। লেবুর রসের সাথে মিশিয়ে বাচ্চার মাথার তালুতে লাগিয়ে দিন। আধ ঘণ্টা থাকুক, তারপর কচলে কচলে ধুইয়ে নিন শ্যাম্পু দিয়ে। এভাবে ১৫ দিন করুন।

উকুনের বংশ, নির্বংশ করে দাও!
#5. অ্যাপেল সিডার ভিনেগার (Apple Cider Vinegar)
অ্যাপেল সিডার ভিনেগার দিয়ে বাচ্চার চুল ভালো মতো ভিজিয়ে নিন। ভিনেগার শুকিয়ে গেলে নারকেল তেল মালিশ করুন। এভাবে ৬/৭ ঘণ্টা রেখে দিন। হয়ে গেলে চুল আঁচড়ে, শ্যাম্পু দিয়ে ধুইয়ে দিন।

সূত্র:ব্যাবি ডেস্টিনেশন

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*