নতুন মায়ের ত্বকের যত্ন

গর্ভকালে ত্বকের ঠিকঠাক যত্ন না নিলে সন্তান জন্ম দেওয়ার পর নতুন মায়েদের চেহারায় আরও বেশি ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে! বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা, হরমোনের নাচানাচি এবং পুষ্টির ঘাটতি এর প্রধান কারণ। তাই এসময় চাই সঠিক যত্ন-আত্তি। চলুন, একনজরে দেখে নেওয়া যাক গর্ভকালে ও সন্তান জন্মানোর পরে কী কী এবং কীভাবে যত্ন নেবেন নতুন মায়েরা।(Skincare Tips for New Moms in Bengali.Skincare Tips for New Moms in Bangla.)

নতুন মায়ের ত্বকের যত্ন
#1.রুক্ষ ত্বক (Dry and Itchy Skin)
নারকেল তেল অথবা অলিভ অয়েল ভালো ময়েশ্চারাইজারের কাজ করে। অ্যালোভেরার রসও ত্বকের রুক্ষতা দূর করতে বেশ কার্যকর। মধু, অ্যালোভেরা মিশিয়ে মুখে লাগান। কিছুক্ষণ রেখে কুসুম গরম জলে ধুয়ে নিন।

নতুন মায়ের ত্বকের যত্ন
#2.মেছতার দাগ (Acne Breakouts)
রসুন পেস্ট করে দাগের জায়গায় লাগান। কিছু সময় পর পর ধুয়ে ফেলুন। এতে মেছতার দাগ দূর হয়ে যাবে। কমলার খোসা ও গোলাপজলের পেস্টও ব্যবহার করতে পারেন। ২০ মিনিট রেখে হালকা ম্যাসাজ করে ধুয়ে ফেলুন।

নতুন মায়ের ত্বকের যত্ন
#3. স্ট্রেচ মার্কস (Stretch Marks)
চিনির সঙ্গে আমন্ড অয়েল ও সামান্য লেবুর রস দিয়ে দিনে একবার দাগের জায়গায় ম্যাসাজ করুন, ভালো ফল পাবেন। এছাড়াও আপনি অলিভ অয়েল দিয়ে ম্যাসাজ করতে পারেন, ধীরে ধীরে দাগ চলে যাবে এতে।

নতুন মায়ের ত্বকের যত্ন
#4. চোখের নীচে কালো দাগ (Under Eye Dark Circles)
আলু-শসার পেস্ট বানিয়ে চোখে লাগিয়ে ১০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। টি-ব্যাগ ফ্রিজে ঠান্ডা করেও ব্যবহার করতে পারেন। এতে চোখের ফোলা ভাব দূর হবে। পর্যাপ্ত জল খান আর রোজ অন্তত ৮ ঘণ্টা ঘুমান।

নতুন মায়ের ত্বকের যত্ন
#5. চুল পড়া (Hair Fall)
নিয়ম করে তেল ম্যাসাজ করুন চুলে। এতে চুল নরম-মসৃণ থাকবে। ভালো মানের
শ্যাম্পু, কন্ডিশনার ব্যবহার করার চেষ্টা করুন। মাছ ও সবুজ শাকসবজি রোজের খাদ্য তালিকায় রাখুন, চুল রক্ষা পাবে, ঝলমল করবে ত্বকও!
এরই সঙ্গে মেনে চলুন আরও কিছু পরামর্শ(Things to remember)

সন্তান গর্ভে থাকা অবস্থায় এবং জন্মানোর পর শুয়ে বসে সময় কাটাবেন না। এসময়ে অল্প হাঁটাহাঁটি করা খুবই প্রয়োজন।
সঠিক যত্ন নিন নিজের। একবার নিজের সৌন্দর্য হারিয়ে গেলে তা ফিরিয়ে আনা বেশ কষ্টসাধ্য ব্যাপার।
ঘরে বসেই হালকা ব্যায়াম করুন। এতে শরীর সুস্থ থাকবে।
পুষ্টিকর খাবার খাওয়ার অভ্যাস করুন। কারণ এ সময় হরমোনের পরিবর্তনের কারণে শরীরে পুষ্টির ঘাটতি হয়। তাই সঠিক খাবার খাওয়া খুব দরকার।

সূত্র:ব্যাবি ডেস্টিনেশন

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*